জীবাণুদের চলাফেরা কীভাবে হয়?

জীবাণুদের চলাফেরা কীভাবে হয়?

ভাইরাস যদি নড়াচড়া করতে না পারে তাহলে কিভাবে বংশবিস্তার করতে পারে?

ভাইরাস যদি নড়াচড়াই করতে না পারে জনসংখ্যা কি করে বাড়াবে।

আমি সেই ডিম থিওরির কথা বলি। ডিম ত নড়াচড়া করতে পারে না, তবে তা মুদির দোকান থেকে আপনার ঘরে কি করে এলো! এখন ডিমগুলো মুরগী দিয়ে তা দেন, ২১ দিনে বাচ্চাও ফুটে বেরুবে।

দেখুন ভাইরাস কিভাবে ছড়ায় মানে নড়া চড়া বা একজায়গা থেকে অন্যজায়গায় যায়।

চিত্রে, দেখুন আমরাই ভাইরাসকে এককাশিতে ৬ ফুট কখনো ১৮০ফুট পর্যন্ত এগিয়ে দিই। 



একবার যখন মানুষ বা পশুপাখীর শরীরে ভেতরে শ্বাসতন্ত্রের মেমব্রেনে পৌঁছে যাবে তখন এর অনেকগুলো হাত থাকে , যা উক্ত কোষের রিসেপ্টর এ আটকাতে পারে।




একেক ভাইরাসের এক এক রকম হাত। অতঃপর সেটা কোষের ভেতরে প্রবেশ করে।






চিত্রে,
১, ভাইরাসের বাতাসে অবস্থান।
২, বাতাস থেকে শ্বাসতন্ত্রে আগমন,
৩, ভাইরাল স্পাইক এর রিসেপ্টরে সংযোজন,
৪, বাহক কোষে আবরনীমুক্ত হয়ে ভাইরাসের জিনোমের প্রবেশ,
৫, বাহক কোষের RNA তে সংযোজন , ভাইরাসের mRNA হতে ভাইরাল প্রোটিন তেরি ,
৬, পার্শ্ববর্তী কোষে আক্রমণ ।

৭, এরপর সে কোষের বিপাক ক্রিয়া নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিজের কপি তৈরি করতে থাকে।

৮, একসময় কোষটিকে মেরে ফেলে পার্শ্ববর্তি কোষে চলে যায়। সেখানেও পুনরায় আক্রমন চালায়।

৯, এভাবে তাদের বংশবৃদ্ধি চলতে থাকবে।





সাবস্ক্রাইব করুন। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত প্রশ্ন, উত্তর বা উপদেশ পেতে শুধু হোয়াটস্যাপ +৮৮০১৮১৩৬৮০৮৮৬ এ মেসেজ দিন।

মন্তব্যসমূহ